৫ আগস্টের আগে খুলছে না শিল্প কারখানা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

0
50

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে করণীয় নিয়ে বৈঠকে বসে সরকার। সেই বৈঠকে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বলা হয়, চলমান সরকারঘোষিত বিধিনিষেধ আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্তই চলবে। এসময় বন্ধ থাকবে সব ধরনের শিল্প কারখানা।

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও সংক্রমণ-মৃত্যু কোনোটিই কমছে না। এই পরিস্থিতিতে করণীয় ঠিক করতে গুরুত্বপূর্ণ এক সভায় বসে সরকার।

দুপুরে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, পুলিশ প্রধান, বিজিবি প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট দফতর ও বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে সভার সিদ্ধান্ত নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসজনিত পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা এবং প্রতিরোধক টিকা কার্যক্রম নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত এমন এসেছে- আমাদের যে লকডাউন চলছে তা ৫ তারিখ পর্যন্ত চলতে থাকবে। যদিও আমাদের শিল্পপতিরা পোশাক কারখানা খুলে দেওয়ার অনুরোধ করেছিলেন, আমরা সেই রিকোয়েস্ট বোধহয় গ্রহণ করতে পারছি না।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন, লকডাউন ৫ তারিখ পর্যন্তই চলবে। আমরা আশা করছি অন্যান্য দেশের মতো সংক্রমণ ধীরে ধীরে কমে আসবে। তার আগে, শিল্প কারখানা খুলবে না।

লকডাউন বাড়ছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, লকডাউন বাড়ছে কিনা সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত লকডাউন থাকবে। এই সংক্রমণ অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও কমবে। আমরা এ জন্য এই টিকাদান কর্মসূচি জোরদার করব। আমাদের কাছে যে টিকা আসছে সেই টিকা দিয়েই আমরা এই কার্যক্রম চালিয়ে যাব। পরবর্তীতে যে টিকা আসবে সেগুলোও আমরা পর্যায়ক্রমে ব্যবহার করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here