ত্রিপুরার এক ছোট্ট কিশোরের বড় স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে

0
46

অঙ্কুর রায়। বয়স ১৫। নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছোট্ট এই কিশোরের বড় স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। ৭ সেপ্টেম্বর ভারতের নভোযান চন্দ্রযান -২ এর চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করার কথা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে চন্দ্রযান -২ এর সরাসরি অবতরণ দৃশ্য দেখার জন্য অঙ্কুরকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

জানা গেছে, অঙ্কুর রায় ত্রিপুরার ধলাই জেলার আম্বাসার বাসিন্দা। ডলুবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সে। ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা রিসার্চ অর্গানাইজেশন (ইসরো) কর্তৃক স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরিচালিত অনলাইন স্পেস কুইজ প্রতিযোগিতায় ৬০ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে। এদের মধ্যে অঙ্কুরও নির্বাচিত একজন।

ভারতের চন্দ্রযান -২

ভারতের মহাকাশ কর্মসূচি সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণির ছাত্রদের মধ্যে ওই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

জানা গেছে, অঙ্কুরকে একটি বার্তা পাঠিয়েছে ইসরো। সেই বার্তায় তাকে শুক্রবার বেঙ্গালুরুতে যেতে বলা হয়েছে। শনিবার ভোরে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ভারতের ঐতিহাসিক কৃতিত্ব প্রত্যক্ষ করতে তাকে ওই বার্তায় নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

অঙ্কুরের বাবা অমরেন্দ্র রায় এবং স্কুল শিক্ষকরা তার এই সাফল্যে ভীষণ খুশি হয়েছে।

অঙ্কুর সাংবাদিকদের বলেন, আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমি কখনও এই সাফল্য অর্জনের স্বপ্ন দেখিনি। এটি আমার জীবনের একটি অবিস্মরণীয় মুহূর্ত হতে চলেছে।

প্রসঙ্গত, চন্দ্রযান -২ এর মাধ্যমে ভারতের উচ্চাকাঙ্ক্ষী চন্দ্রাভিযান শুরু হয়েছে। চন্দ্রযান -২ চাঁদের এমন এক স্থানে অভিযান চালাবে যেখানে কোনও দেশ এর আগে কখনও যায়নি। এই স্থানটি হলো চাঁদের দক্ষিণ মেরু অঞ্চল।

এই মিশনটির মধ্য দিয়ে ভারত হবে চতুর্থ দেশ, যারা চাঁদের ভূমিতে অবতরণ করবে। এর আগে, ১৯৬৬ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ২০১৩ সালে চীনের নভোযান চাঁদে অবতরণ করেছিল।

জানা গেছে, অঙ্কুর ছাড়াও ভারতের উত্তর-পূর্বের আরও তিনজন শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন যারা ইসরো সদর দপ্তরে চন্দ্রযানের অবতরণ প্রত্যক্ষ করবে। এই শিক্ষার্থীর হলেন-আসামের তেজশ্বিনী গজুরেল, অরুণাচল প্রদেশের কুমার লিজ বাসার এবং মেঘালয়ের রিবাইত ফাওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here