অবশেষে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় ভারত-নেপাল

0
31

সম্পর্কের কাঠিন্য কাটিয়ে ভারত ও নেপাল বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় উন্নয়নমূলক কর্মসূচির অগ্রগতি পর্যালোচনা করল। সোমবার দুই দেশের সরকারি বৈঠকে ঠিক হয়, ভারতীয় সহায়তায় গৃহীত কর্মসূচিগুলোর দ্রুত রূপায়ণ করা হবে। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই এই খবর জানিয়েছে।

করোনার দরুন ওই বৈঠক হয় ভিডিও কনফারেন্সিং মারফত। দুই দেশের মধ্যে প্রচলিত পর্যবেক্ষণ বন্দোবস্ত অনুযায়ী সোমবারের ওই বৈঠক ছিল অষ্টম পর্যায়ের। নানান টালবাহানার পর এই বৈঠক হলো ঠিক এক বছর পর। ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন নেপালে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বিনয় মোহন কোয়াত্রা আর নেপালি প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্রসচিব শঙ্কর দাস বৈরাগী। বৈঠকের পর নেপালে ভারতীয় দূতাবাস থেকে প্রচারিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, দুই দেশই চলমান প্রকল্পগুলোর কাজ দ্রুত রূপায়ণ করবে।

বিভিন্ন কারণে এক বছর ধরে ভারত ও নেপালের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের অবনতি হয়েছিল। গত ৮ মে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং লিপুলেখ গিরিপথ সংযোজনকারী ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ রাস্তা উদ্বোধনের পর সম্পর্ক আরও খারাপ হয়। নেপাল তাদের সার্বভৌমত্বে অনধিকার হস্তক্ষেপের অভিযোগ আনে। লিপুলেখ, কালাপানি ও লিম্পিয়াধুরাকে তাদের অংশ দাবি জানিয়ে তারা নতুন ম্যাপও প্রকাশ করে। নেপালের ওই ভূমিকার সমালোচনা করে ভারত। সে দেশের মানচিত্রে ওই ‘কৃত্রিম সংযোজন’ অগ্রাহ্য করে। নেপালের প্রধানমন্ত্রী খড়্গপ্রসাদ শর্মা ওলি জানান, ওই তিন অঞ্চল ভারতের কাছ থেকে ‘উদ্ধার’ করা হবে। সম্পর্কের এই অবনতির মাঝে ১৫ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী ওলির সঙ্গে কথা হয় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। তার আগেই অবশ্য ঠিক হয়েছিল সোমবার দুই দেশের পদাধিকারীরা বৈঠকে বসবেন।

বৈঠকে কোভিড-১৯-এর মোকাবিলায় ভারতের অবদানের কথা নেপাল স্বীকার করে। নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার মধ্যে থাকা তরাই সড়ক, আন্তসীমান্ত রেল যোগাযোগ, অরুণ-৩ জলবিদ্যুৎ প্রকল্প, পেট্রপণ্য সরবরাহের পাইপলাইন, সেচ ব্যবস্থা, ভূমিকম্প-পরবর্তী স্থাপনা, বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন, মহাকালী নদীর ওপর যানচলাচলের উপযুক্ত সেতু তৈরিসহ বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে দুই দেশের আলোচনা হয়। ঠিক হয়েছে, প্রকল্পগুলোর রূপায়ণে যেসব সমস্যা ও বাধা দেখা দিচ্ছে, সেগুলোর দ্রুত নিরসন করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here